October 15, 2021, 9:07 pm

শিরোনাম
চাকরিজীবীরা একে অপরকে বিয়ে করতে পারবে না,সাংসদ বাবলুর প্রস্তাব বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের দোয়া ও তাবারক বিতরণ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬- তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান। পিরোজপুর সদর উপজেলা জেলা সেভ দ্য ফিউচার ফাউন্ডেশন এর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা শোকের মাসে সৌদি প্রবাসীদের দূতাবাসের বিশেষ সেবা প্রদান করা হবে- রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদ থেকে, সামাজিক সংগঠন এমিনেন্ট বয়েজ কে কাভিট ইকুপমেন্ট প্রদান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরের জন্য ঘুষ না দেওয়ায় মারপিট! ইন্দুরকানীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের -২৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত! ছাত্রদল নেতা সিরাজ এখনো বয়ে বেড়ান তার সেই ভয়াবহ গুলির স্মৃতি পিরোজপুর সদরে ভূইফোঁড় সাংবাদিক ও মানবাধিকার নেতার ছড়াছড়ি।

ধর্ষণ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর বার্তা

দেশে উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা। একটি ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আরেকটি ঘটনা সামনে আসছে। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে অস্বস্তি এবং উৎকন্ঠা বাড়ছে। সরকারও এসব ঘটনায় বিব্রত। আর এই প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং আইন মন্ত্রণালয়কে এ ব্যাপারে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র গুলো বলছে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তার কার্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাগুলো মনিটরিং করছে। এ ধরনের ঘৃন্য কাজের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সংশ্লিষ্ট সূত্র গুলো বলছে, এসব ঘটনা বন্ধে প্রধানমন্ত্রী ১০টি নির্দেশনা দিয়েছেন বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও কর্তৃপক্ষকে। এগুলো হল-

১. এ ধরনের অপকর্মের সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে হবে।

২. ধর্ষকের কোন রাজনৈতিক পরিচয় নেই। সে যেই হোক না কেন, কোন ছাড় দেয়া হবে না।

৩. নির্যাতিত নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

৪. এসব ঘটনার দ্রুত এবং প্রভাব মুক্ত বিচার নিশ্চিত করতে হবে।

৫. নির্যাতিত নারী এবং ঐ পরিবারকে আইনী সহায়তা দেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

৬. এসব ঘটনা বন্ধে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে আরো তৎপর হতে হবে।

৭. এসব ঘটনায় যদি পুলিশ বা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অবহেলায় সচেতনতা মূলক কার্যক্রম শুরু করতে হবে।

৮. এসব বন্ধে সামাজিক প্রতিরোধ তৈরি করতে হবে। প্রয়োজনে এলাকায় সচেতনতা মূলক কার্যক্রম শুরু করতে হবে।

৯. জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে সমন্বয় সভা করে, এব্যাপারে নজরদারি বাড়াতে হবে।

১০. স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ধর্ষণ বন্ধে ভূমিকা রাখতে হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র গুলো বলছে, এসব ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত দুঃখিত এবং ব্যথিত। যারা এসব  করছে, তারা মানুষ নামের ‘নরপশু’ বলেও মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সংশ্লিষ্ট সূত্র গুলো বলছে, এ ব্যাপারে জিরো টলারেন্স দেখানোর জন্য তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved, প্রবাসী ক্লাব ফাউন্ডেশন- The Expat Club Foundation. (এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি)।  
Design & Developed By NCB IT
Shares