September 21, 2021, 5:01 pm

শিরোনাম
চাকরিজীবীরা একে অপরকে বিয়ে করতে পারবে না,সাংসদ বাবলুর প্রস্তাব বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের দোয়া ও তাবারক বিতরণ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬- তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান। পিরোজপুর সদর উপজেলা জেলা সেভ দ্য ফিউচার ফাউন্ডেশন এর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা শোকের মাসে সৌদি প্রবাসীদের দূতাবাসের বিশেষ সেবা প্রদান করা হবে- রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদ থেকে, সামাজিক সংগঠন এমিনেন্ট বয়েজ কে কাভিট ইকুপমেন্ট প্রদান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরের জন্য ঘুষ না দেওয়ায় মারপিট! ইন্দুরকানীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের -২৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত! ছাত্রদল নেতা সিরাজ এখনো বয়ে বেড়ান তার সেই ভয়াবহ গুলির স্মৃতি পিরোজপুর সদরে ভূইফোঁড় সাংবাদিক ও মানবাধিকার নেতার ছড়াছড়ি।

বাগেরহাট জেলার ২০২১ সালে রাজস্ব আদায়ে রেকর্ড ছাড়াবে মোংলা বন্দর।

রাজু চৌধুরী, বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ বাগেরহাট জেলায় সময়ের সাথে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের দ্বিতীয় সামুদ্রিক বন্দর মোংলা। আমদানি রপ্তানি বানিজ্যিকে গতিশীল করতে এ বন্দরে প্রতিনিয়ত যুক্ত করা হচ্ছে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি। পাশাপাশি বন্দরের অবকাঠামো উন্নয়নের কাজও চলছে দ্রুতগতিতে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনা ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আন্তর্জাতিক বিশ্বে একটি উন্নত ও লাভজনক বন্দর হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে এ বন্দর। করোনা সংক্রমনের মধ্যেও মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ স্বাভাবিক ভাবেই তাদের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। বন্দর কর্তৃপক্ষ স্বাভাবিক আশা ২০২১ সালে এ বন্দরে ১ হাজারেরও বেশি জাহাজ আগমন করবে।

পদ্মা সেতু চালু হলে অন্যান্য সমুদ্র বন্দরের তুলনায় এ বন্দরের গুরুত্ব বাড়বে কয়েকগুন। করোনা ভাইরাসের প্রভাব দেশের অন্যান্য বন্দরগুলোতে পড়লেও মোংলা বন্দরে তেমন একটা পড়েনি। বিশেষ করে বর্তমান চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোঃ শাহজাহান, পিএসসি, বিএন মোংলা বন্দরে যোগদানের পরপরই বন্দরের সবগুলো সেক্টরের কার্যক্রমে তিনি নিয়মিত তদারিক করেন। তার সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের কারনে করোনার প্রভাব থাকা সত্বেও বন্দরের আমদানি রপ্তানি কার্যক্রমে তিনি নিয়মিত তদারিক করেন। তার সময়োপযোগী কারনে করোনা প্রভাব থাকা সত্বেও বন্দরের আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম গতিশীল থাকে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও গত অর্থ বছরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এ সমুদ্র বন্দর। এ বন্দর দিয়ে নিয়মিত পন্য আমদানি – রপ্তানি কার্যক্রম অব্যাহত থাকায় আগামী অর্থ বছরে রাজস্ব আদায় রেকর্ড ছাড়াবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম.শাহজাহান বলেন, দেশে করোনার সংক্রমন থাকলেও বন্দরের আমদানি রপ্তানিতে কোনো ভাটা পড়েনি। বন্দর ব্যবস্থাপনার সঠিক নির্দেশনা সবাই মেনে চলায় বন্দরের কার্যক্রম বরাবরই গতিশীল। তিনি আরো জানান, মোংলা বন্দরে আগম বিদেশী জাহাজগুলোকে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ব্যবস্থা নিয়েছে। জাহাজের নাবিক ও শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়টি মাথায় রেখেই নানা মূখী কার্যক্রম চলমান রয়েছে। দিন দিন বন্দরের রাজস্ব আদায় বেড়েই চলছে। আগামী ২০২১ সালে বন্দরের রাজস্ব আদায় ৪০০ কোটি টাকার বেশি হবে বলে এ প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছেন বন্দরের রাজস্ব বিভাগের কর্মকর্তারা।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, গত অর্থবছরে ৯০৩টি জাহাজ আসে এবং ১ লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন কার্গো হ্যান্ডেলিং হয়েছে। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ পরিচালক মোঃ মোস্তফা কামাল বলেন, বিগত অর্থ বছরের তুলনায় যেসব পন্য এসেছিলো তার থেকে সামান্য পরিমান কম এসেছে। অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও বন্দরের দীর্ঘ ও স্বল্প মেয়াদী উন্নয়ন প্রকল্পের কার্যক্রমে কোন ব্যাঘাত ঘটেনি বলেও জানান তিনি। মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম. শাহজাহান বলেন, সরকারের মাস্টার প্ল্যান অনুযায়ী বন্দরের উন্নয়নে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ শেষ হয়েছে কয়েকটি চলমান রয়েছে। পদ্মা সেতু চালু হলে বন্দরের আমদানি রপ্তানি কয়েকগুন বাড়বে। আমরা সে প্রস্ততিও ইতিমধ্যে নিয়ে রেখেছি। মোংলা বন্দরে প্রতিবছর জাহাজ আগমনের সংখ্যা বাড়ছে। বাড়ছে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম। গত ১০ বছরের চেয়ে বন্দরে জাহাজের আগমন বেড়েছে ৫ গুন। ২০২১ সালে এ বন্দরের জাহাজের আগমনের সংখ্যা ১ হাজারে গিয়ে দাঁড়াবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved, প্রবাসী ক্লাব ফাউন্ডেশন- The Expat Club Foundation. (এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি)।  
Design & Developed By NCB IT
Shares