September 19, 2021, 11:36 pm

শিরোনাম
চাকরিজীবীরা একে অপরকে বিয়ে করতে পারবে না,সাংসদ বাবলুর প্রস্তাব বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের দোয়া ও তাবারক বিতরণ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬- তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান। পিরোজপুর সদর উপজেলা জেলা সেভ দ্য ফিউচার ফাউন্ডেশন এর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা শোকের মাসে সৌদি প্রবাসীদের দূতাবাসের বিশেষ সেবা প্রদান করা হবে- রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদ থেকে, সামাজিক সংগঠন এমিনেন্ট বয়েজ কে কাভিট ইকুপমেন্ট প্রদান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরের জন্য ঘুষ না দেওয়ায় মারপিট! ইন্দুরকানীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের -২৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত! ছাত্রদল নেতা সিরাজ এখনো বয়ে বেড়ান তার সেই ভয়াবহ গুলির স্মৃতি পিরোজপুর সদরে ভূইফোঁড় সাংবাদিক ও মানবাধিকার নেতার ছড়াছড়ি।

সাগর শিকদার ৪নং ওয়ার্ড পিরোজপুর পৌরবাসীর সেবা করতে চান।

মো.নূর উদ্দিন (পিরোজপুর): পিরোজপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের প্রার্থী হবার বিষয়ে ভাবছেন শিকদার পরিবারের এই প্রজন্মের পরিচিত মূখ সাপোর্ট মানব কল্যাণ সংস্থার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন সিকদার (সাগর)। সুযোগ পেলে তিনি পৌরবাসীর ৪নং ওয়ার্ডের সেবা করতে চান এমনটি তিনি জানিয়েছেন এই প্রতিবেদককে ।

অতি সম্প্রতি তিনি তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডবাসীর উদ্দেশ্যে কিছু কথা লিখেছেন, যা হুবহু তুলে ধরা হল :

পিরোজপুর পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডবাসীর উদ্দেশ্যে আমার কিছু কথা:

আমি সাগর শিকদার,পিতা:- মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা হামদু সিকদার এর মেঝ ছেলে, আপনাদের এই মাটির সন্তান। আমি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর হাতে গড়া দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী । ছাত্র জীবনে প্রতি সকালেই ঘুম ভেঙে স্লোগানে মুখরিত করে রাখতে হয়েছে সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজ ক্যাম্পাস বিতাড়িত করতে হয়েছে তৎকালীন সময়ে জামাত-বিএনপির দোসরদের কে ।আমার বাবা ছিলেন জাতির পিতার- সংগ্রাম পরিষদের সদস্য এবং পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি -তাই শুধু আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান হিসেবে নয়, দলের প্রতি ভালোবাসাটা এখান থেকেও রক্তের সাথে মিশে গিয়েছে।

পিরোজপুর জেলা রাজনীতি আমার পিতা ছিলেন অনেকে অভিভাবক। ৯১-পরবর্তী বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময় যখন শহরে আওয়ামীলীগ এর অফিস করা যাচ্ছিল না তখন আমার পিতা নিজ উদ্যোগে কলেজ রোডে আমাদের নিজস্ব ভূমিতে আওয়ামী লীগের জেলা কার্যালয় করেছিলেন। সেই দুঃসময়ে যখন আপনজন এবং দলের লোকেরা সরে গিয়েছিলো, তখন আমার বাবা সমস্ত ভয় এবং লোভের উর্ধ্বে উঠে জেলা আওয়ামী লীগকে টিকিয়ে রেখেছিলেন । নেতারা তাঁকে ওস্তাদ হিসেবেই চিনতেন।
আমার মেঝ ভাই রেজাউল করিম সিকদার (মন্টু) উপজেলা পরিষদের একবার নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন- বর্তমানে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

আমার বাবার তৃতীয় ছেলে হিসেবে তাঁর আদর্শকে সমুন্নত রাখতে আমি মানুষের পাশে থেকে মানুষের কল্যাণেই ৪নং ওয়ার্ড বাসীর জন্য জীবন উৎসর্গ করতে চাই। আমার সুযোগ ছিলো অনেকের মতোই জেলা রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ গড়ে তোলা। কিন্তু এই ৪ নং ওয়ার্ডের মাটির ও এলাকার প্রতি আজন্ম মমতা আমি ভুলতে পারি না। এখানে থাকলেই আমি প্রাণ পাই। দামী গাড়িতে চড়ার চেয়ে এখানের ভ্যানে চড়েই আমি বেশি আনন্দ পাই। এখানের প্রতিটি মানুষকেই মনে হয় আপন মানুষ।

আপনারা দেখেছেন, সরকারি কোন অনুদান ছাড়া ব্যক্তি পর্যায় সীমিত ক্ষমতার মধ্যেও আমি যতটুকু সুযোগ পেয়েছি মানুষের জন্য কাজ করেছি । বিশেষ ক্ষমতায় না থেকেও আমি এখানকার মানুষের প্রতি ভালোবাসার জন্য তাদের কর্মসংস্থানের চেষ্টা করেছি । এজন্য তৈরি করেছি একটি ব্যাগ ফ্যাক্টরি যেখানে শুধু আমার এলাকার লোকদের ই কর্মসংস্থান হবে। অন্যরা যখন শুধু নিজের আখের গুছিয়েছে, আমি তখন লোভ এবং লাভকে সরিয়ে বেকার যুবকদের চাকুরির ব্যবস্থা করার চেষ্টা করছি। বাহিরের সামাজিক সংগঠন থেকে সাহায্য এনে এখানের মানুষের মুখের হাসি দেখতে চেয়েছি । আমার সীমিত ক্ষমতার মধ্যেও শুধু কল্যাণকামী ইচ্ছার জন্য অল্প কিছু সংখ্যক পরিবার আজ ভালো আছে।

ছাত্র রাজনীতির অবস্থা অনেক আন্দোলন করেছি। পরীক্ষিত মানুষের পরিবর্তে সুযোগ-সন্ধানী কেউ দায়িত্ব পেলে মানুষের কোনো কল্যাণ হয় না, সেটা আপনারা সকলেই দেখেছেন। আর তরুণ নেতারাই আজকাল তাদের কর্মশক্তি,সততা আর আধুনিক নতুন চিন্তার বাস্তবায়ন করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

আমাকে আপনাদের স্বজন ভাবুন। সুখে দুঃখে আমি আপনাদের সাথে নিয়েই থাকতে চাই। বিপদে বন্ধুর মতোই এগিয়ে আসতে চাই। সকল হিংসা বিদ্বেষের উর্ধ্বে উঠে সাধারণের একজন হয়ে আমি আপনাদের হৃদয়ের একজন হতে চাই। পিতার কাছ থেকে পাওয়া মানুষের প্রতি ভালোবাসার প্রয়োগ করতে চাই। জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন সৎ সৈনিক হয়ে এবং তাঁর নির্দেশের প্রতি শতভাগ অনুগত থেকে আমি আমার পিরোজপুর পৌরসভার ৪-নাম্বর ওয়ার্ডের মাটির মানুষের পাশে থাকতে চাই।

আপনাদের ভালোবাসা পেলে আপাও(জননেত্রী) নিশ্চয় আমাকে আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল একজন ভাববেন । পিরোজপুর পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের সার্বিক কল্যাণ কামনা করে এই কথা বলেই শেষ করছি যে–
পাশে থাকুন -আর পাশে রাখুন।
আমি আপনাদের সন্তান ,আপনাদের ভাই , আপনাদের বন্ধু।

জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু।
মোঃ নাসির উদ্দিন সিকদার (সাগর)

শেয়ার করুন

© All rights reserved, প্রবাসী ক্লাব ফাউন্ডেশন- The Expat Club Foundation. (এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি)।  
Design & Developed By NCB IT
Shares